টিফিনের জন্য আনা পাঁচ টাকার কয়েন গিলে ফেলল এক ছাত্র!

নিজস্ব সংবাদদাতা : স্কুলে মুখের মধ্যে কয়েন নিয়ে আনমনে খেলছিল এক ছাত্র। হঠাৎই সেই কয়েন চলে গেল গলায়। তার পর পেটে।

টিফিনের জন্য আনা পাঁচ টাকার কয়েন গিলে ফেলল এক ছাত্র। তার জেরে পড়াশোনা উঠল শিকেয়। তাকে নিয়ে হাসপাতালে ছুটলেন শিক্ষকরা। পূর্ব বর্ধমানের কালনার অকালপৌষ এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে।কালনার অকালপৌষ এ পি জি উচ্চ বিদ্যালয় এই ঘটনা ঘটেছে। কয়েন গিলে ফেলা ওই ছাত্রের নাম অলীক দাস। সে এই স্কুলের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র। টিফিন কিনে খাওয়ার জন্য সে বাড়ি থেকে পাঁচ টাকা একটি কয়েন নিয়ে এসেছিল।মঙ্গলবার স্কুল চলাকালীন মুখে নিয়ে কয়েন নিয়ে খেলার সময় অসাবধানতায় সে ওই কয়েন গিলে ফেলে। বিষয়টি তার সহপাঠীরা শিক্ষকদের জানান। শিক্ষকরা তাকে কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যান। পাশাপাশি তার বাড়িতেও খবর দেওয়া হয়।

ওই ছাত্রকে ভর্তি করে নিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন শ্বাসনালীতে ওই কয়েন আটকে গেলে তা ভয়াবহ হয়ে উঠতে পারত। শ্বাসনালীতে আটকে তার মৃত্যুও হতে পারত। তবে কয়েনটি তার পেটেই রয়েছে। তা বের করার জন্য আরও পরীক্ষা করা দরকার। প্রয়োজনে অস্ত্রোপচার করে তা বের করতে হতে পারে।

স্কুলের শিক্ষক সুদেব বিশ্বাস বলেন, একটি ছাত্র কয়েন খেয়ে নিয়েছে বলে আমাদের কাছে খবর আসে। এরপরই তাকে শিক্ষকরা কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসকরা দ্রুততার সঙ্গে চিকিৎসা শুরু করেন। তবে কয়েনটি শ্বাসনালীতে না আটকে পেটে চলে যাওয়ায় আপাতত সে ঠিক আছে। ওই কয়েন কিভাবে বের করা যায় তা খতিয়ে দেখছেন চিকিৎসকরা।শিক্ষকরা বলছেন, কয়েন বা ওই ধরনের কোনও কিছুই মুখে রাখা উচিত নয়। কয়েনে প্রচুর ধুলো ময়লা, রোগের জীবাণু থাকতে পারে। তা থেকে শরীর খারাপ থাকার আশঙ্কা থেকেই যায়। তাছাড়া কয়েন বা বাঁশি জাতীয় সামগ্রী, ছোট বল মুখে নেওয়ার প্রবণতা অনেক শিশুদের মধ্যেই দেখা যায়। তা থেকে বড় ধরনের বিপদ হতে পারে। এ ব্যাপারে মাঝেমধ্যেই পড়ুয়াদের সচেতন করা হয়। এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি আটকাতে ছাত্রদের সচেতন করা হচ্ছে।