ছান্দসিকের বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

নিজস্ব সংবাদদাতা মেদিনীপুর….. “ছান্দসিক” আবৃত্তি চর্চা কেন্দ্রের তৃতীয় বার্ষিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হলো মেদিনীপুর শহরের সংস্কৃতি চর্চার অন্যতম প্রাণকেন্দ্র রবীন্দ্র নিলয় প্রেক্ষাগৃহে। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট বংশীবাদক রঞ্জন জানা তাঁর বংশীবাদনের মধ্য দিয়ে । তাঁর অসাধারণ বংশীবাদনের সুর মূর্ছনায় অনুষ্ঠানটি শুরুতেই এক অন্যন্য মাত্রায় পৌঁছে যায়। পাশাপাশি উদ্বোধনী সঙ্গীতে অংশগ্রহণ করেন “বিশ্ববীণা”-র শিক্ষার্থীগণ। এদিনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সঙ্গীতগুরু জয়ন্ত সাহা। এছাড়াও অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংগীত শিল্পী রথীন দাস ,রবীন্দ্র স্মৃতিসমিতির সম্পাদক লক্ষণ ওঝা,বাচিক শিল্পী অমিয় পাল , মালবিকা পাল সহ মেদিনীপুরের সংস্কৃতি জগত ও সমাজসেবা ক্ষেত্রের অন্যান্য বিশিষ্ট জনেরা। ছান্দসিক পরিবারের পক্ষ থেকে অতিথিদের বরণ করে নেন কবি ও ছড়াকার বিদ্যুৎ পাল, সংস্কৃতি কর্মী বিশ্বজিৎ কুন্ডু,বাচিক শিল্পী জয়া মুখার্জি সহ অন্যান্যরা। এদিনের মেদিনীপুরের একঝাঁক সংস্কৃতিকর্মী ও সমাজকর্মীকে সংবর্ধনা জানানো হয়। অনুষ্ঠানে একক ও সমবেত আবৃত্তি পরিবেশন করেন ছান্দসিকের সদস্যগণ।নৃত্য পরিবেশন করেন “অনুপল্লবী” নৃত্য

    শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কচিকাঁচারা ।

    ছান্দসিক পরিচালিত কোলাজ “মা” পরিবেশন করেন ছান্দসিকের সদস্যগণ। অংশগ্রহণে ছিলেন জয়া মুখার্জী,মৃদুলা ভুঁইয়া, শুক্লা মুখার্জী, জয়তি কুন্ডু ,গার্গী সরকার,মধুছন্দা মাইতি বনানী মল্লিক,শীলা মহাপাত্র অনিন্দিতা সাউ,তিয়াসা মুখার্জী,সবিতাব্রত রায় প্রচেতা পন্ডা, অনামিকা মুখার্জী, সুজয়া হালদার ও পার্থ পন্ডা। অনুষ্ঠান তবলায় সহযোগিতা করেন পরেশ দাস। গোটা অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন মন্দিরা খান্ডা ও জয়া মুখার্জী।