কৃষক আন্দোলনের ফলে পাঞ্জাবে পুর নির্বাচনে মুখ থুবড়ে পড়লো BJP, বিরাট জয় কংগ্রেসের

নতুন গতি ওয়েব ডেস্ক: কৃষক আন্দোলনের ফলে পাঞ্জাবের পুরভোটে মুখ থুবড়ে পড়লো BJP, জয়জয়কার একের পর এক পুর নিগমে জয় পেল কংগ্রেস ধরাশায়ী বিজেপি। আবোহার, ভাটিন্ডা, কাপুরথালা, হোসিয়ারপুর এবং পাঠানকোট পুরনিগমে জয় লাভ করেছে কংগ্রেস। বাটালা, মোগা ও মোহালির ফলাফল বের হতে বাকি আছে। আটটির মধ্যে পাঁচটিতেই জয় পেয়েছে কংগ্রেস। কৃষক আন্দোলনের জেরেই বিজেপির এমন ভরাডুবি বলছে রাজনৈতিক মহল।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পঞ্জাবে পুরভোট হয়েছিল। বুধবার পাঞ্জাবের ৮টি কর্পোরেশন এবং ১০৯টি মিউনিসিপ্যাল কাউন্সিল আর নগর পঞ্চায়েতের ভোট গননা হয়। সেখানে মাত্র ৭টি আসনে জিতেছে বিজেপি। অন্যদিকে, ৭টি কর্পোরেশন-সহ অধিকাংশ পুরসভাই কংগ্রেসের দখলে। একক শক্তিতে এবং নির্দলদের সঙ্গে নিয়ে পঠানকোট, বাটালা, হোশিয়ারপুর, অবোহর, ভাতিন্ডা, কপূরথলা, মোগা, কর্পোরেশন দখল করতে চলেছে কংগ্রেস।

এদিন সকালে ১০৯টি পুরসভা এবং ৮টি পুরনিগমের ভোট গণনা শুরু হয়। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণ হয়েছিল। ৭১ শতাংশের মতো ভোট পড়েছিল। এবারের পুর নির্বাচন অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ছিল কৃষক আন্দোলনের জন্য। ভারতের যেকটি রাজ্যে আন্দোলন চলছে তার মধ্যে প্রধান হল পাঞ্জাব। দিল্লি সীমান্তে সবচেয়ে বেশি পাঞ্জাব থেকেই কৃষকরা অংশ নিয়েছেন। তার যে একটা প্রভাব এই নির্বাচনে পড়বে তা আন্দাজই ছিল। কংগ্রেসের সঙ্গে মূল লড়াই ছিল বিরোধী দল শিরোমণি অকালি দলের। এনডিএ জোট থেকে অকালিরা বেরিয়ে যাওয়ায় পাঞ্জাবে দুর্বল হয়ে পড়েছে বিজেপি। তার উপর খাঁড়ার ঘা কৃষি আইন নিয়ে দেশজুড়ে বিক্ষোভ। আরেক দল আম আদমি পার্টি অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই করছে।

শেষ খবর পাওয়া অনুযায়ী, মোহালি জেলায় কুরালি, বানুর, লালরু, ডেরাবাসি পুরসভায় জিতেছে কংগ্রেস। অকালিদের দখলে গিয়েছে নয়াগাঁও। জিরাকপুর ও খারারের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হচ্ছে দুই দলের। প্রায় দুদশক পর আলাদা আলাদা লড়াই করছে অকালি দল ও বিজেপি। তাই বাড়তি সুবিধা পেয়েছে কংগ্রেস।