কাকার বাইক নিয়ে বের হতেই আচমকা ভাইপোর পায়ে সাপের ছোবল

নিজস্ব প্রতিবেদক:-চলন্ত বাইকে সাপের ছোবল! কাকার বাইক নিয়ে বের হতেই আচমকা ভাইপোর পায়ে সাপের ছোবল। মূহূর্তেই আঁতকে ওঠেন বাইক চালক!ঘটনাটি ঘটেছে শিলিগুড়ি লাগোয়া ফুলবাড়ির পূর্ব ধনতলায়! এদিন কাকার বাইক নিয়ে বেরোন ভাইপো। বাইক স্টার্ট করে বাড়ি থেকে বের করতেই আচমকা পায়ে ছোবল মারে সাপ। প্রথমে অবশ্য তা বুঝতে পারেননি। কিছু একটা কামড়েছে, এমনটাই ভেবেছিলেন বাইক চালক।গাড়ি থামাতেই সামনে আসে ছবি। চেন কভার থেকে মুখ বের করে বসে আছে সাপ! দেখামাত্রই ভয়ে চিৎকার করে ওঠেন। তাঁর চিৎকার শুনে অন্যরা বেরিয়ে আসেন বাড়ি থেকে। ভিড় জমান কৌতূহলী প্রতিবেশীরাও।বাইকের চেন কভারে লুকিয়ে ছিল সাপটি, যা দেখে তাজ্জব বনে যান সকলেই। দ্রুত বাইক চালককে লিটন রায়কে নিয়ে যাওয়া হয় উত্তরবঙ্গ মেডিকেলে। এবার তো সাপটাকে বের করতে হবে! তৎক্ষনাৎ ডাক পড়ে স্থানীয় এক সাপুরের।বাইকটিকে নিয়ে যাওয়া হয় পাশের এক মোটর গ্যারাজে। তার পর সাপুরে চেন কভার খুলে ফেলেন। সেখান থেকে বের করা হয় সাপটিকে। জানা গিয়েছে, সেটি দাঁড়াস সাপ ছিল।

উদ্ধার করা সাপটিকে সুকৌশলে জারবন্দী করা হয়। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। কারণ এর আগে এমন ঘটনা এলাকায় ঘটেনি। গতকাল রাতে কাজ শেষে কাকা বাপি রায় বাড়িতেই রেখেছিলেন বাইকটি। আজ সকালে ভাইপো চাইতেই তাঁর হাতে চাবি তুলে দেন।এখোনও বর্ষা আসেনি। তার আগে কোথা থেকে এল সাপটি? তা নিয়ে ধন্দে সকলেই। আতঙ্কও ছড়িয়ে পড়ে। উত্তরবঙ্গের ডুয়ার্সে সাপের আনাগোনা রয়েছে। বিভিন্ন প্রজাতির সাপ রয়েছে জঙ্গল ঘেঁষা এলাকায়। কখোনো বিছানায়, আবার কখোনো বা ক্লাস রুম থেকে মিলেছে পাইথন থেকে গোখরে।