বারাসাত লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার একগুচ্ছ সামগ্রী উপহার দেগঙ্গা প্রশাসনের আধিকারিকদের হাতে

বারাসাত লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার একগুচ্ছ সামগ্রী উপহার দেগঙ্গা প্রশাসনের আধিকারিকদের হাতে

বারাসাত: সাংসদ তহবিল থেকে প্রাপ্ত অর্থ সাহায্যে দেগঙ্গা ব্লক প্রশাসনের হাতে পরিবেশ বান্ধব আবর্জনা স্থান,মল বাহিত যান ও জলাধার বহনকারী যান এর শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে কেন্দ্রের জনবিরোধী মোদি সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন বারাসাত লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ ডাঃ কাকলি ঘোষ দস্তিদার। তিনি বলেন দেশের মানুষ উন্নয়ন চায়,কাজ চায় তারা সাম্প্রদায়িকতা ভেদাভেদ চায় না, তাই জনকল্যাণমূলক কর্মসূচি না করে শুধুমাত্র বিভাজনের রাজনীতি করে যাচ্ছে যা অত্যন্ত ন্যক্কারজনক। তিনি বলেন কেন্দ্রীয় সরকারি সম্পত্তি গুলি একের পর এক বিক্রি ও বেসরকারিকরণের মধ্যে দিয়ে দেশকে বিক্রির পথে নিয়ে চলে যাচ্ছে এই সরকার তাই আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ করার পাশাপাশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে ছাড়া ভারতবর্ষজুড়ে ২৪ এর লোকসভা নির্বাচনে কেন্দ্রে জনমুখী সরকার গঠিত হবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন।
দেগঙ্গা বিডিও অফিসে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সাংসদ ছাড়াও জেলা পরিষদের বন ও ভূমি স্থায়ী সমিতির কর্মাধ্যক্ষ এ কে এম ফারহাদ বলেন সমাজের সর্বত্র উন্নয়ন দেখতে গেলে দেশের মানুষকে বাংলাকে রোলমডেল করতে হবে বলে তিনি জানান। দেগঙ্গা তথা রাজ্যের প্রত্যেকটি ব্লকে যেভাবে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখেছে পশ্চিমবঙ্গের জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তা অনন্য। আগামী দিনে এইভাবে আরও উন্নয়নের ধারা বজায় রাখার জন্য শান্তি সম্প্রীতি উন্নয়নের প্রতীক মমতা ব্যানার্জিকে উন্নততর ভারত গড়ার জন্য তিনি আহ্বান করে। বারাসাত লোকসভা কেন্দ্রের সংসদ ডাক্তার কাকলি ঘোষ দস্তিদার যেভাবে পরিবেশবান্ধব বিভিন্ন রকমের সামগ্রী তুলে দিয়েছেন এর জন্য তাকে নতমস্তকে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন কর্মাধ্যক্ষ ফারহাদ।
পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মফিদুল হক সাহাজি তার বক্তব্যে রাজ্য সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মসূচির পাশাপাশি দেগঙ্গা মানুষের জন্য সাংসদ যেভাবে কাজ করছেন তার জন্য দেগঙ্গাবাসীর পক্ষ থেকে তাঁকে ধন্যবাদ জানান। সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক শ্রী সুব্রত মল্লিক বলেন জনপ্রতিনিধিরা মানুষের হয়ে যেভাবে কাজ করে চলেছে তা সত্যিই প্রশংসনীয়। আজ আমরা আনন্দিত আমাদের সাংসদ যেভাবে পরিবেশবান্ধব বিভিন্ন উপহার সামগ্রী আমাদের হাতে তুলে দিয়েছে। তিনি আশা প্রকাশ করেন এই সমস্ত জিনিসপত্র দিয়ে আগামী দিনে দেগঙ্গার সামগ্রিক উন্নয়নে যথাযথ কাজে লাগানোর চেষ্টা করব।


উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্য বিশিষ্ট জনের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় থানার আইসি অজয় কুমার সিংহ, স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ ধীমান ব্যানার্জি, কর্মাধ্যক্ষ আনিসুর রহমান বিদেশ, তুষার কান্তি দাস, লিয়াকত আলী সাগর সহ অন্যান্য কর্মাধ্যক্ষ সদস্য ও বিশিষ্টজনেরা।