মালদা জেলা জুড়ে বন্ধ বেসরকারী নার্সিংহোমের বহির্বিভাগ

নিজস্ব সংবাদদাতা; মালদা: জুনিয়ার চিকিৎসকদের আন্দোলনকে সমর্থন করে মালদা জেলার সমস্ত নার্সিংহোমের বহির্বিভাগ বন্ধ করে এই বিক্ষোভে সামিল হন নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে প্রাইভেট চেম্বার বন্ধ রেখে চিকিৎসকরা জুনিয়ার চিকিৎসকদের আন্দোলনকে সমর্থন করেন। সোমবার সকাল থেকে দেখা গেল বিভিন্ন বেসরকারি নার্সিং হোমের সামনে রোগী এবং তাদে পরিজনদের ভিড়। নার্সিংহোমের গেটে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে পোস্টার। তাতে লেখা রয়েছে জরুরী বিভাগ খোলা এবং বহির্বিভাগ বন্ধ।

     

    স্বভাবতই দূর-দূরান্ত থেকে আসা রোগীরা এদিন কোন চিকিৎসা পরিষেবা পেলনা। মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেও একই চিত্র। জরুরী বিভাগ খোলা থাকলেও বন্ধ ছিল বহির্বিভাগ।
    এর ফলে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা রোগীরা পরিষেবা না পেয়ে বাড়ি ফিরতে বাধ্য হন। চিকিৎসা করাতে এসে রোগী এবং তাদের পরিজনেরা জানিয়েছেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটির একটি কিনারা হওয়া দরকার। বহু মানুষ চিকিৎসা পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। দূরদূরান্ত থেকে রোগীরা চিকিৎসা করানোর জন্য মালদা শহরে ছুটে আসেন। কিন্তু কোনো লাভ হচ্ছে না। গত কয়েকদিন ধরে জুনিয়ার চিকিৎসকদের আন্দোলনের ফলে ব্যাহত হচ্ছে চিকিৎসা পরিষেবা। প্রশাসন এবং চিকিৎসকরা বসে এর একটি সুরাহা করা দরকার। নইলে অচিরেই বহু মানুষ চিকিৎসা না পেয়ে প্রাণ হারাবেন। মালদা শহরের বি জি রোড, কে জ স্যান্যাল রোড সহ বিভিন্ন জায়গায় যেখানে সকাল হলেই চিকিৎসকরা তাদের প্রাইভেট চেম্বার খুলে বসেন এবং হাজার হাজার রোগী ও তাদের পরিজনেরা সেখানে ভিড় জমাতেন। সোমবার সকালে সেই সমস্ত এলাকায় চিত্র ছিল আলাদা। চেম্বার বন্ধ কারণে শুনশান ছিল রাস্তাঘাট।