ঋদ্ধির পাশে বেঙ্গসরকার, করলেন বিস্ফোরক মন্তব্য

নতুন গতি নিউজ ডেস্ক: ভালো খেললে দলে নিতেই হবে, কোনও ক্রিকেটারকে অবসর নিতে বলার কোনও অধিকার নেই টিম ম্যানেজমেন্টের। ঋদ্ধিমান সাহার পাশে দাঁড়িয়ে জোর সওয়াল প্রাক্তন নির্বাচক প্রধান দিলীপ বেঙ্গসরকারের। তাছাড়া শুধুমাত্র বয়সের কারণে কোনও ক্রিকেটারকে কীভাবে বলা হতে পারে যে, তাঁর জন্য জাতীয় দলের দরজা বন্ধ, এটাই বুঝে উঠতে পারছেন না টিম ইন্ডিয়ার আর এক প্রাক্তন তারকা সৈয়দ কিরমানি।

শ্রীলঙ্কা সিরিজের টেস্ট দল থেকে বাদ পড়ার পরেই ঋদ্ধিমান সাহা ফাঁস করেন যে, তাঁকে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের সময় কোচ রাহুল দ্রাবিড় অবসর নেওয়ার পরামর্শ দেন। তিনি এও জানান যে, দ্রাবিড় স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁকে আর ভবিষ্যতে ভারতীয় দলের জন্য বিবেচনা করা হবে না।

নির্বাচক প্রধান চেতন শর্মার কাছেও অবশ্য ঋদ্ধিকে বাদ দেওয়ার কোনও যুক্তি ছিল না। তিনি জানান, ফর্ম বা বয়স এক্ষেত্রে কোনও বিষয় নয়, তাঁরা নতুনদের দেখে নিতে চান বলেই সাহার বদলে টেস্ট দলের দ্বিতীয় কিপার হিসেবে কেএস ভরতকে জায়গা করে দিয়েছেন।

তাঁর সঙ্গে ঘটা অবিচারের ছবি ঋদ্ধি সামনে তুলে ধরতেই বেঙ্গসরকার-কিরমানিরা সরব হয়েছেন। আনন্দবাজারকে বেঙ্গসরকার জানিয়েছেন, বয়স কখনও জাতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার মাপকাঠি হতে পারে না। তিনি বলেন, ‘বয়সের নিরিখে জাতীয় দল থেকে কাউকে বাদ দেওয়ার পক্ষপাতী নই আমি। বয়স মাপকাঠি হতে পারে না। ভালো খেললে দলে নিতেই হবে। আগে থেকে বলে দেওয়া যায় না যে, তোমাকে আর জাতীয় দলে নেওয়া হবে না। নির্বাচকরা ঋদ্ধিকে বাদ দেওয়ার কারণ জানাতে পারছে না। কেএস ভরত ভারতীয় দলের ভবিষ্যৎ, তবে ফর্মে থাকা ক্রিকেটারকে কোন যুক্তিতে বাদ দেওয়া যায়? ঋদ্ধিকে যদি বলা হয় ওকে আর জাতীয় দলের জন্য বিবেচনা করা হবে না, তবে বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের জবাব দেওয়া উচিত।

অন্যদিকে কিরমানি বলেন, ‘টিম ম্যানেজমেন্ট কোনও ক্রিকেটারকে অবসর নিতে বলতে পারে না। যদি মনে হয় খেলাবে না, তবে বসিয়ে রাখতে পারে। অবসর নেওয়ার কথা ভাবতে বলা কোনওভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।’