৪টি উইকেট নিয়ে এই নজিরবিহীন রেকর্ড গড়লেন ফাস্ট বোলার প্রসিধ কৃষ্ণ

৪টি উইকেট নিয়ে এই নজিরবিহীন রেকর্ড গড়লেন ফাস্ট বোলার প্রসিধ কৃষ্ণ

 

 

 

 

নতুন গতি নিউজ ডেস্ক : ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজ উদ্বোধনী ম্যাচে ভারত ৬৬ রানে ইংল্যান্ড বাহিনীকে পরাজিত করে ৩ ম্যাচের সিরিজে ১-০ লিড নেয়। এই ম্যাচে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অলরাউন্ডার ক্রুনাল পান্ডিয়া ও কেকেআরের ফাস্ট বোলার প্রসিধ কৃষ্ণ টিম ইন্ডিয়ার হয়ে ডেবিউ করেন। প্রসিধ কৃষ্ণই হলেন প্রথম ভারতীয় খেলোয়াড় যিনি ডেবিউ ম্যাচেই ৪ টি উইকেট নেন। ক্রিকেট ইতিহাসে এটি একটি নজিরবিহীন রেকর্ড।

 

৮ ওভারে ৫৪ রান দিয়ে ৪টি উইকেট নিয়ে প্রসিধ কৃষ্ণ নোয়েল ডেভিডের ২৪ বছরের রেকর্ড ভাঙলেন। ১৯৯৭ সালে পোর্ট অফ স্পেনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৩/২১ পরিসংখ্যানের সাথে রেকর্ড করেছিলেন নোয়েল ডেভিড। ১৬ জন ভারতীয় বোলার ওয়ানডে অভিষেকে ৩ টি উইকেট নেন কিন্তু কলকাতা নাইট রাইডার্সের এই ফাস্ট বোলার প্রথম ভারতীয় হিসেবে পুনেতে স্বপ্নের অভিষেক ঘটান এবং ৪টি উইকেট তোলেন।

 

যাইহোক, ২৫ বছর বয়সী এই পেসার বেয়ারস্টো এবং রয় মধ্যে উদ্বোধনী পার্টনারশিপ ভাঙেন। জেসন রয়কে ৪৬ রানে ফিরত পাঠান তিনি। এরপর কৃষ্ণ নিয়মিত বিরতিতে উইকেট তুলতে থাকেন। তাঁর বোলিং স্পেলে বেন স্টোকস ১ রান, স্যাম বিলিংস ১৮ রান এবং টম কারান ১১ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। প্রসিধের পাশাপাশি শার্দুল ঠাকুরও নেন ৩ টি উইকেট। ভুবনেশ্বর কুমার নেন ২টি উইকেট। ক্রুণাল পান ১ টি।

 

টসে জিতে বোলিং এর সিদ্ধান্ত নেয় ইংল্যান্ড। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে ৩১৭ রান লক করে ভারত। তাঁর জবাবে ৪২.১ ওভারের মাথায় ২৫১ রান করে গুটিয়ে যায় গোটা ইংল্যান্ড বাহিনী। প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে ওপেনার হিসেবে কোহলি রোহিত শর্মার সাথে শিখর ধাওয়ানকে নির্বাচন করেন। ২ রানের জন্য সেঞ্চুরি মিস করেন শিখর। ১০৬ বলে ৯৮ রান দুর্দান্ত ইনিংস খেলে তাক লাগান তিনি। ১১ টি চার এবং ২ টি ছক্কায় সাজানো শিখরের ইনিংস বহুল প্রশংসা পায়। অন্যদিকে রোহিত শর্মা ৪২ বলে ২৮ রান করেন। ৬০ বলে ৫৬ রানের ইনিংস খেলেন কোহলি। টি ২০ তে ব্যাট হাতে নিস্তেজ থাকার পর আজ প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে রাহুলের ব্যাট চওড়া হয়। ৪৩ বলে ৬২ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। এদিকে ডেবিউ ম্যাচে দুর্দান্ত নক খেলেন ক্রুণাল। ওয়ানডে অভিষেকেই বিশ্বের দ্রুততম ডেবিউ ব্যাটসম্যান হয়ে ওঠেন তিনি। ৩১ বলে ৫৮ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। তাঁর এই নজরকারা ইনিংস ভারতকে ৩১৭ রানে পৌঁছাতে সাহায্য করে।