৫ হাজার ই-বাস তৈরির সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার

মহঃ মফিজুর রহমান, নতুন গতি : পেট্রোল-ডিজেলের দাম আকাশ ছোঁয়া । এই মূল্যবৃদ্ধির বাজারে চাহিদা বাড়ছে ই-বাসের । এমতাবস্থায় একদিকে জ্বালানির সাশ্রয় করতে, অন্যদিকে যান পরিষেবা বাড়াতে ৫ হাজার ই-বাস তৈরির সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার । এর জন্য প্রায় ২৫০০ কোটি টাকা রাজ্যে বিনিয়োগ করবে ইজিভি ট্রান্সপোর্ট ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড । বিশ্ব বাণিজ্য সম্মেলনের সমাপ্তি দিনে ইজিভি ট্রান্সপোর্ট ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের সঙ্গে এসংক্রান্ত চূড়ান্ত আলোচনা সেরে ফেলেছে রাজ্য সরকার । এর ফলে একদিকে যেমন জ্বালানির সাশ্রয় হবে, তেমনই কমবে পরিবেশ দূষণ । সুবিধা পাবেন নিত্যযাত্রীরা । পাশাপাশি ই-বাস সেক্টরে কর্মসংস্থান হবে প্রায় ২৩ হাজার । বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনের সমাপ্তির দিনে একথা জানান রাজ্যের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী তথা অর্থ দপ্তরের বর্তমান মুখ্য উপদেষ্টা ডঃ অমিত মিত্র ।

ইজিভি ট্রান্সপোর্ট ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের ডিরেক্টর রবিকুমার পাঙ্গা জানান, ই-বাস চলার জন্য প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো রয়েছে বাংলায় । কলকাতায় এখন ই-বাসের চাহিদা যথেষ্ট । তাই এরাজ্যে ই-বাস তৈরির জন্য প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে তাঁর সংস্থা । রবীকুমার পাঙ্গা আরও জানান, আপাতত দেড় হাজার ই-বাস তৈরি করবেন তাঁরা । পরে ই বাসের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে তিন থেকে পাঁচ হাজার । বাস গুলির রক্ষণাবেক্ষণের কাজও এরাজ্যে করা হবে বলে জানান সংস্থার কর্ণধার । ইজিভি ট্রান্সপোর্ট ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের বিনিয়োগের ফলে এবার শহরজুড়ে ইলেকট্রিক বাস নামানোর পথে কয়েক কদম এগিয়ে গেল বাংলা । এটাকে এবারের বিশ্ব বাণিজ্য সম্মেলনের অন্যতম বড় সাফল্য বলেও মনে করছেন অনেকে ।

সূত্রের খবর, মুর্শিদাবাদের রেজিনগরের শিল্প তালুকে তৈরি হবে ই-বাস তৈরির কারখানা । একদা যে শিল্প তালুকের উদ্বোধন হয়েছিল প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের হাত ধরে । সেখানেই এবার নতুন শিল্প তৈরির উদ্যোগ নিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।