কলকাতার ফোর্ট উইলিয়ামকে সিরাজগড় হিসাবে স্বীকৃতির দাবি তুললো হিন্দু মুসলমান ফ্রেন্ডস অ্যাসোসিয়েশন।

লুতুব আলি, নতুন গতি : কলকাতার ফোর্ট উইলিয়ামকে সিরাজগড় হিসাবে স্বীকৃতির দাবি তুললো হিন্দু মুসলমান ফ্রেন্ডস অ্যাসোসিয়েশন। নবাব সিরাজউদ্দৌলাকে ইতিহাসে বিকৃত করা হয়েছে। নবাব সিরাজউদ্দৌলা ছিলেন একজন দেশপ্রেমিক। তিনি ইংরেজদের সঙ্গে সমঝোতা করলে তাঁকে পদচ্যুত হতে হত না। তিনি নির্মমভাবে হত্যা লীলার শিকার ও হতেন না। এই কথাগুলি বলে কলকাতার তিন দশকেরও অধিক সময়ের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা হিন্দু মুসলমান ফ্রেন্ডস অ্যাসোসিয়েশন। কলকাতার আলিয়া হোটেলের কাছে সিরাজ সরণীতে নবাব সিরাজউদ্দৌলার মৃত্যু দিবস পালনের সঙ্গে এই স্বেচ্ছা ছবি সংস্থাটি গর্জে উঠলো। সংগঠনটি আর ও দাবি তোলেন কলকাতার ফোর্ট উইলিয়াম কে অবিলম্বে সিরাজগড় হিসেবে স্বীকৃতি না দিলে তারা বৃহত্তর আন্দোলনের পথে নামবেন। মহান দেশপ্রেম িক বাংলা বিহার উড়িষ্যার নবাব সিরাজউদ্দৌলার মৃত্যু দিবসের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবী রবীন্দ্রনাথ চক্রবর্তী। সভার শুরুতে নবাব সিরাজউদ্দৌলার প্রতিকৃতিতে ফুলমালা ধুপ ও মোমবাতি জ্বালিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এই অনুষ্ঠানে নবাব সিরাজউদ্দৌলার দেশপ্রেম ও বর্ণময় জীবন নিয়ে আলোকপাত করেন বিশিষ্ট সমাজ কর্মী ও অধ্যক্ষ শামসুল আলম, সংগঠনের সভাপতি দিলীপ দাস প্রমুখ। এক সাক্ষাৎকারে রবীন্দ্রনাথ চক্রবর্তী বলেন, সাম্প্রতিককালে কলকাতা দূরদর্শন নবাব সিরাজউদ্দৌলার ইতিহাসকে বিকৃত করে নবাবকে নারী প্রেমিক দেখিয়ে এক লম্বা সিরিয়াল চালিয়েছিল। এ ব্যাপারে হিন্দু-মুসলমান ফ্রেন্ডস অ্যাসোসিয়েশন কলকাতার রাজপথে নেমে প্রতিবাদ গড়ায় সেই সিরিয়ালটি কলকাতা দূরদর্শন কর্তৃপক্ষ বন্ধ করতে বাধ্য হয়। পূর্বে কলকাতা মেয়র এর কাছে সিরাজউদ্দৌলার প্রতিকৃতি বসানোর জন্য সংগঠনটি দাবি তুললেও তা বাস্তবায়িত হয়নি। নবাব সিরাজউদ্দৌলা ইংরেজদের সঙ্গে হাত মিলালে তাঁর নির্মম মৃত্যু ঘটতো না, উপরন্ত তাঁর পথচলা আরও মসৃণ হতো। অনুষ্ঠানে বক্তারা নবাবের দেশপ্রেমের বিভিন্ন দিকগুলি তুলে ধরেন ও ওই অল্প বয়সে দেশের মান রাখতে ইংরেজদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করতে দ্বিমত করেননি। কিন্তু দেশবিরোধী মীরজাফর গোষ্ঠী চক্রান্ত করে যেত যুদ্ধে নবাব মানে আমাদের হারিয়েছে এরা এখনো সজীব এদের বিরুদ্ধে দেশের স্বার্থে লড়াই চলবে। শামসুল আলম সাহেব নবাব সিরাজউদ্দৌলার জীবনী বিষয় তুলে ধরে বলেন উনার সম্পর্কে বিকৃত ইতিহাস পড়ানো হয় এর বিরুদ্ধে জনসচেতনতা গড়ে তুলতে হবে এবং স্কুল কলেজের পাঠ্য বইতে নবাবের পূর্ণ জীবনী পড়াতে হবে। রবীন্দ্রনাথ চক্রবর্তী নবাব সম্পর্কে বিস্তারিত ব্যাখ্যা করে যে দাবিগুলি রাখেন সেগুলি হল : এন এস থার্টি ফোর রোড এর নাম নবাব সিরাজউদ্দৌলার নামে নামকরণ করতে হবে, সিরাজউদ্দৌলার স্মরণ নিতে নবাবের মূর্তি বসাতে সরকার বা কলকাতা পৌরসভা কে বা ওই স্থলে সংগঠনকে জায়গা দিলে সংগঠন নিজ ব্যয়ে মতি স্থাপন করবেন।