বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ১০ জন ধনকুবেরের তালিকায় নেই মুকেশ আম্বানির নাম

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ১০ জন ধনকুবেরের তালিকায় নেই মুকেশ আম্বানির নাম

 

নতুন গতি ডিজিটাল ডেস্ক : এই মুহূর্তে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ১০ জন ধনকুবেরের তালিকায় নেই মুকেশ আম্বানির নাম। এর আগে ‘ব্লুমবার্গ বিলিনিয়ার ইনডেক্সে’ চার নম্বর স্থানে ছিলেন তিনি। কিন্তু এখন ব্লুমবার্গের তালিকার সেরা দশ থেকে ছিটকে গিয়েছেন তাঁর স্থান এখন এগারো। প্রায় ১ লক্ষ কোটি টাকা কমেছে মোট সম্পত্তির পরিমাণ।

বর্তমানে তাঁর মোট সম্পত্তির মূল্য ৭৬.৫ বিলিয়ন ডলার। ভারতীয় হিসেবে ৫.৬৩ লক্ষ কোটি টাকা। বছরের গোড়ার দিকে এই অঙ্ক ছিল প্রায় ৯০ বিলিয়ন ডলার বা ৬.৬২ লক্ষ কোটি টাকা। অর্থাৎ প্রায় ১ লক্ষ কোটি টাকা কমেছে মোট সম্পত্তির পরিমাণ। কিন্তু কেন এভাবে আচমকাই কমে গেল আম্বানির সম্পত্তি? আসলে হঠাত করেই রিলায়েন্সের শেয়ার দর পড়ে গিয়েছে ১৬ শতাংশ। আর তার ফলেই কমেছে আম্বানিদের মোট সম্পত্তির পরিমাণ।

এর আগে গত আগস্টে ২৪,৭১৩ কোটি টাকার বিনিময়ে ‘ফিউচার গ্রুপে’র খুচরো ও পাইকারি ব্যবসা এবং লজিস্টিক্স ও ওয়্যারহাউজিং ব্যবসা কিনে নিয়েছিল রিলায়েন্স। সেই সময় সংস্থার শেয়ার দর ছুঁয়েছিল সর্বোচ্চ অবস্থান। তা পৌঁছেছিল ২৩৬৯.৩৫ টাকায়। সেখান থেকে কয়েক মাসেই বেশ কিছুটা কমে গিয়েছে শেয়ার দর। বৃহস্পতিবার তাদের শেয়ার দর পৌঁছেছে ১৯৯৪.১৫ টাকায়।

কিন্তু শেয়ার দরে কেন হঠাৎ ভাটার টান? আসলে এর পিছনে রয়েছে আমাজন। মার্কিন ই-কমার্স জায়ান্ট ‘ফিউচার গ্রুপে’র সঙ্গে রিলায়েন্সের চুক্তির প্রতিবাদ জানিয়েছিল। তাদের বক্তব্য ছিল, ২০১৯ সালেই ওই সংস্থার অধীনস্থ ‘ফিউচার কুপনসে’ প্রায় ২০০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে তারা। এই অবস্থায় ‘ফিউচার গ্রুপ’ তাদের সব সম্পত্তি অন্য কাউকে বেচে দিতে পারে না। এই বিতর্ক ও প্রতিবাদের ধাক্কাতেই কমে গিয়েছে আম্বানির সংস্থার শেয়ার দর।