টুইটার অ্যাকাউন্ট লক করে দেওয়া হয়েছে বলে ক্ষোভ উগরে দিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী

নতুন গতি নিউজ ডেস্ক: রাহুল গান্ধীর টুইটার অ্যাকাউন্ট লক করে দেওয়া হয়েছে সপ্তাহখানেক হল। কেবল তিনিই নন, কংগ্রেসের একাধিক টুইটার হ্যান্ডলের উপরেও সাময়িক কোপ পড়েছে। এই পরিস্থিতিতে জনপ্রিয় মাইক্রোব্লগিং সাইটের উপরে ক্ষোভ উগরে দিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তিনি অভিযোগ তুললেন, দেশের রাজনীতিতে নাক গলাতে চাইছে টুইটার। তাঁর ইঙ্গিত সরাসরি বিজেপির দিকেও। ইতিমধ্যেই একটি ‘হ্যাশট্যাগ’ প্রচারও করেছে কংগ্রেস- ‘বিজেপিসে ডর গ্যয়া’।

শুক্রবার ইউটিউবে ‘টুইটারের ভয়ংকর খেলা’ শীর্ষক এক ভিডিও বিবৃতিতে রাহুল বলেন, ”আমার টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে রাজনীতিতে নাক গলানোর জন্যই। একটি সংস্থা ব্যবসা করতে গিয়ে যেভাবে আমাদের রাজনীতির সংজ্ঞা তৈরি করার চেষ্টা করছে একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে সেটা আমি একেবারেই পছন্দ করছি না।” তাঁর দাবি, ”এটা দেশের গণতন্ত্রের উপরে আক্রমণ।”

তাঁর অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা প্রসঙ্গে রাহুলের দাবি, ”এটা কেবল আমার উপরেই আক্রমণ নয়। আমার ২ কোটি ফলোয়ার রয়েছেন। তাঁদেরও মতামত দেওয়া থেকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এতে টুইটারের নিরপেক্ষ ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে।” সেই সঙ্গে সংসদে বিরোধীদের কণ্ঠরোধ করার অভিযোগও আনেন রাহুল। তাঁর কথায়, ”আমাদের গণতন্ত্র আক্রান্ত। আমাদের সংসদে কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না। সংবাদমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে টুইটারে আমরা আমাদের মত জানাতে পারতাম। কিন্তু টুইটারও আর নিরপেক্ষ নেই। এটা একেবারেই পক্ষপাতদুষ্ট একটা মাধ্যম।”

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে দিল্লির এক দলিত বালিকার ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনার কথা শেয়ার করতে গিয়ে তাঁর পরিবারের ছবিও প্রকাশ্যে এনে ফেলেই বিতর্কে জড়ান রাহুল গান্ধী। সেই সঙ্গে ওই ছবি শেয়ার করে টুইটারের রোষানলে পড়েন আরও কয়েকজন কংগ্রেস নেতা।