বৃষ্টির কারণে সহজ জয় হাতছাড়া ভারতের

নতুন গতি নিউজ ডেস্ক: ভারতের হাত থেকে জয় কেড়ে নিল বৃষ্টি। নিশ্চিত জয়ের ম্যাচে পঞ্চমদিন ভারতের জয়ের জন্য দরকার ছিল মাত্র ১৫৭ রান। হাতে ছিল ৯ উইকেট। তবে এক বল ও খেলা হল না বৃষ্টির কারণে। চা বিরতির কিছু পরেই খেলা সরকারিভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়।

প্রথম ইনিংসে বুমরা-শামিদের দাপটে ভারত মাত্র ১৮৩ রানে থামিয়ে দিয়েছিল ইংল্যান্ডকে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ভারত প্ৰথম ইনিংসে ২৭৮ তোলে। ৯৫ রানের ঘাটতি নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ইংরেজরা তুলেছিল ৩০৩ রান। ভারতের সামনে জয়ের জন্য টার্গেট দাঁড়ায় ২০৮-এ। সেই রানই তাড়া করতে নেমে চতুর্থ দিনের শেষে কেএল রাহুলের উইকেট হারিয়ে ৫২/১ তুলে ফেলেছিল। দরকার ছিল মাত্র ১৫৭ রান। হাতে ছিল ৯ উইকেট। তবে পঞ্চম দিন বৃষ্টি সমস্ত কিছু বানচাল করে দিল।

ট্রেন্টব্রিজে জয়ের জন্য ভারতই ফেভারিট ছিল। ম্যাচ যত গড়িয়েছে, ততই পিচের অবস্থা ভাল হয়েছে। এমন অবস্থায় ভারত যে জয়ের জন্য পঞ্চম দিনে ফেভারিট ছিল, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। যদিও ইংল্যান্ড আবার ২০১৮-য় ভারত চতুর্থ ইনিংসে ২০০ রানের কম টার্গেট তাড়া করে জিততে পারেনি ইংল্যান্ডের বিপক্ষেই। তবে বৃষ্টিটে ভেস্তে যাওয়ার পরে ইংল্যান্ড শিবিরেই স্বস্তির হাওয়া। দুই দলই ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এক পয়েন্ট করে সংগ্রহ করল। এতে অখুশি ভারত-ই।

জয়ের সঙ্গেও ভারতের লক্ষ্য ছিল চেতেশ্বর পূজারাকে পরখ করে নেওয়া। প্ৰথম ইনিংসে শুরুতেই আউট হয়ে যাওয়ার পরে সমালোচিত হচ্ছিলেন তিনি। টানা ব্যর্থতা সত্ত্বেও ট্রেন্টব্রিজে একাদশে কোহলিরা পূজারাকে রেখেছিলেন। যদিও দ্বিতীয় ইনিংসে নিজেকে প্রমাণ করার সুযোগও পেলেন না তিনি।

তবে ভারতীয় শিবিরে স্বস্তির নাম কেএল রাহুল এবং জসপ্রীত বুমরা। শুভমান গিল এবং মায়াঙ্ক আগারওয়ালের চোটের পর রোহিত শর্মার ওপেনিং পার্টনার কে হবেন তা নিয়ে দ্বিধা দ্বন্দ্ব চলছিল। তবে কেএল নিজের জাত চিনিয়ে দিয়েছেন প্ৰথম ইনিংসে দুরন্ত ব্যাটিং করে।

অন্যদিকে শেষ দু বছরের ব্যর্থতা ঝেড়ে ফেলে স্বমহিমায় ফিরেছেন জসপ্রীত বুমরাও। দুই ইনিংস মিলিয়ে বুমরার শিকার ৯ উইকেট। যা নিঃসন্দেহে ভরসা যোগাচ্ছে টিম ইন্ডিয়াকে।