রাশিয়ার অত্যাধুনিক প্রযুক্তি এস ৫০০ মহাকাশ-অস্ত্রও ধ্বংস করতে সক্ষম

মস্কো: ইতিমধ্যেই চীন তুরস্ক সহ বেশ কিছু দেশে এস ৪০০ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা রপ্তানি করেছে নির্মাতা দেশ রাশিয়া। এর পরবর্তী প্রজন্মের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এস-৫০০ দিয়ে কেবল আকাশপথে ধেয়ে আসা ক্ষেপণাস্ত্র, যুদ্ধবিমান বা ড্রোন ইত্যাদি ধ্বংস করার পর এ দিয়ে ঠেকানো যাবে মহাকাশ থেকে হামলা করতে ছুটে আসা অত্যাধুনিক অস্ত্রও।

অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল সের্গেই খাতিলেভ মন্তব্য করে বলেন এস-৫০০ মোতায়েনের পর রাশিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন ঘটবে। রুশ বিমান বাহিনীর বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র বিভাগের সাবেক প্রধান খাতিলেভ আরও বলেন, এস-৫০০ দিয়ে প্রতিরক্ষার নানামুখী দায়িত্ব পালন করা যাবে। হেলিকপ্টার, যুদ্ধবিমান, ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রসহ আকাশপথে ধেয়ে আসা প্রচলিত লক্ষ্যবস্তু এ দিয়ে শনাক্ত করার পাশাপাশি ধ্বংস করেও দেয়া যাবে। তিনি বলেন, শব্দের চেয়ে দ্রুতগতিতে ছুটে আসা লক্ষ্যবস্তু এস ৫০০এর রাডারে ধরা পড়বে এবং তা ধ্বংস করবে।

নতুন ‘এস-৫০০’ ব্যবস্থা বর্তমান ‘এস-৪০০’ এর আধুনিক সংস্করণ নয়, বরং সম্পূর্ণ নতুন ডিজাইনের। এতে আগের থেকেও অনেক নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। এর পাল্লা ভূমিতে ৬০০ কিলোমিটার, ঊর্ধ্বাকাশে ২০০ কিলোমিটার দূরবর্তী সে কোন লক্ষ্যবস্তুকে ধ্বংস করতে সক্ষম। তবে ২ হাজার কিলোমিটার আগে থেকেই এটি যে কোন ক্ষেপনাস্ত্র সনাক্ত করতে পারবে। বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, এই সিস্টেমটি একসাথে ২০টি ব্যালিস্টিক ক্ষেপনাস্ত্র সনাক্ত করতে এবং একবারে ১০টি ধ্বংস করতে সক্ষম। এটি প্রতি সেকেন্ডে ৫-৭ কিলোমিটার গতিতে মিসাইল ছুঁড়তে পারে। বলা হচ্ছে, এই আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মহাকাশে নিচের কক্ষপথে থাকা উপগ্রহগুলোকেও আঘাত করতে পারে।

সূত্র – স্পুটনিক