মুম্বই বিমানবন্দরে নিরাপত্তীরক্ষীর বাঁধার সম্মুখীন সলমন খান

নতুন গতি নিউজ ডেস্ক: ভাইজান-ফ্যানরা সর্বত্র। প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে মেট্রো সিটি, সলমন খানকে কে না চেনেন? সকলের কাছেই তিনি ভাইজান। আর তাঁকেই কিনা মুম্বই বিমানবন্দরে নিরাপত্তীরক্ষীর বাঁধার সম্মুখীন হতে হল!

কারণটা কী? কোনওরকম নথিপত্র না দেখিয়েই বুক চিতিয়ে এয়ারপোর্টে ঢুকছিলেন। হাজার হোক তিনি ভারতের সুপারস্টার। তাই আলাদা করে ভারতীয় হিসেবে তাঁর নিজের পরিচয়পত্র দেখানোর প্রয়োজন নেই, এমনটাই হয়তো ভেবে বসেছিলেন ভাইজান। কিন্তু রক্ষা পেলেন না সেই সময়ে বিমানবন্দরের প্রবেশদ্বারে দায়িত্বে থাকা নিরাপত্তারক্ষীর হাত থেকে। আচমকাই সলমনের পথে বাঁধা হয়ে দাঁড়ালেন তিনি। শুধু তাই নয়, পথ আটকে নির্দেশ দিলেন- নিয়ম মেনে যথাযথ কাগজপত্র দেখিয়ে তারপর এয়ারপোর্টে প্রবেশ করতে। সেই সময়ে মুখে মাস্কও ছিল না সুপারস্টারের। সবমিলিয়ে এক বিশৃঙ্খল কাণ্ড!

সলমন খান স্বয়ং যখন নিরাপত্তারক্ষীর বাঁধার সম্মুখীন হলেন এয়ারপোর্টে, সেই মুহূর্ত ক্যামেরাবন্দী করতেও ভোলেননি পাপ্পারাজিরা। অতঃপর সেই ভিডিও নেটদুনিয়ায় এখন দাবানল গতিতে ভাইরাল। তবে ভাইজান নয়, ভিডিওয় নজর কাড়লেন উর্দিধারী নিরাপত্তারক্ষী। কারণ, অভিনেতাকে আটকানোর পাশাপাশি সেখানে উপস্থিত পাপ্পারাজিদেরও পিছনে সরে যেতে বলেন তিনি। যাঁরা কিনা সলমনের ছবি তোলার জন্য বিমানবন্দরে পোজ দিতে বলছিলেন সুপারস্টারকে।

নেটজনতাদের মন্তব্য, “এই হল উর্দির আসল শক্তি। অত বড় সুপারস্টারকে দেখেও যিনি নিজের দায়িত্ব-কর্তব্য ভুলে যাননি।” তাঁদের কাছে এয়ারপোর্টের সেই নিরাপত্তারক্ষী-ই এখন প্রকৃত হিরো। উল্লেখ্য, সলমন খান আসলে ‘টাইগার থ্রি’র শুটিংয়ের জন্য বিদেশে যাচ্ছিলেন। যে ছবিতে কিনা তাঁর সঙ্গে অভিনয় করবেন ক্যাটরিনা কাইফ এবং ইমরান হাসমিও। আর সেই ছবির শুটিংয়ে বিদেশ যাওয়ার আগেই বিমানবন্দরে এমন কাণ্ড ঘটালেন ভাইজান।