ছিঃ! যৌন ক্ষিদে, মালদার চাঁচলে ছাড় পেলোনা শিশুটি

উজির আলী,চাঁচল:১৮ নভেম্বর

এক বৃদ্ধ কর্তৃক ০৭ বছর বয়সী এক শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। শিশুটির ডাক্তারী পরীক্ষা করানো হয়েছে পুলিশ জানিয়েছে। ছিঃ!যৌন ক্ষিদের জন‍্য অবশেষে ছাড় পেলো না শিশুটিও। এমন মানসিক বিকৃতি ঘটনাটি মালদহের মালতিপুর বিধানসভার চন্দ্রপাড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকেলে গ্রামের এক গৃহশিক্ষকের কাছ থেকে টিউশন পড়ে বাড়ি ফেরত হচ্ছিল ওই শিশু। এলাকার রাস্তার ধারে চায়ের দোকান। ওই বৃদ্ধ দোকানি শিশুটিকে ডেকে বিস্কুট দেয় এবং ফুঁসলিয়ে জোর করে বৃদ্ধ শিশুটিকে তার ঘরে টেনে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ। তার পরেই এই ঘটনা। বৃদ্ধের এক মেয়েকে বিয়ে দিয়েছে। ছেলেরও বিয়ে হয়েছে। পৃথক করে সংসার করেছে ছেলে। স্ত্রীকে নিয়েই থাকে বৃদ্ধ। তবে এদিন ছিল তার স্ত্রী।

শিশুটি নিজের বাড়ি ফিরতেই কান্নাকাটি শুরূ করে। কান্না শূনে জড়ো হয় প্রতিবেশীরাও। শিশুর আকার ইঙ্গিতে সবাই বুঝে যায় সর্বনাশ হয়েছে।
শিশুটি ঘটনার কথা নিজেই বলন মা কে। এরপর ঘটনা চাউর হতেই তেতে ওঠে গোটা এলাকা। সোমবার সন্ধ্যায় ওই বৃদ্ধেক টেনে এনে চলে গনপ্রহার। সমাজে কুর্কম ঘটিয়েছে তাই এলাকার মানুষ জুতোর মালা পড়িয়ে লোকলজ্জা দেন ওই বৃদ্ধকে। পরে খবর পেয়ে চাঁচল থানার পুলিশ বৃদ্ধটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
সূত্রের খবর শিশুর পিতা পরিযায়ী শ্রমিক।
মা,বলেন আমার মেয়ের সাথে এমন অঘটন ঘটবে ভাবতে অবাক লাগছে। আশাপুরের এক সমাজকর্মী আবুবক্কর সিদ্দিক বলেন, এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানায়, অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি গ্রহন করা উচিত প্রশাসনের। শাস্তি দেখে ভুলেও যেন কেউ এইরকম ঘটনা ঘটার সাহস না পায়। এই অমানবিক ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন সভ‍্য সমাজের সকল স্তরের মানুষ।
চাঁচল থানার আই.সি সুকুমার ঘোষ বলেন, শিশুর ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।