সিরাতের রাজ্য পর্যায়ের মেধা অন্বেষণ পরীক্ষা বিভিন্ন জেলায়।

নিজস্ব সংবাদদাতা : সিরাত সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার এন্ড এডুকেশনাল ট্রাস্ট। সরকার অনুমোদিত একটি শিক্ষা, সেবা ও সংস্কৃতিমুলক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। সংস্থার রাজ্য সম্পাদক ও শিক্ষক আবু সিদ্দিক খান বলেন, আজ যে পরীক্ষা সুসম্পন্ন হলো সবকিছু আমাদের সংস্থার প্রতিনিধি, পরীক্ষা কমিটি ও শিক্ষানুরাগীদের প্রচেষ্টার ফলে হয়েছে তাদের কাছে কৃতজ্ঞতা স্বীকার করছি। আজ বিভিন্ন জেলায় মোট ২১ টি সেন্টারে প্রায় দু,হাজার শিক্ষার্থী মাধ্যমিক শিক্ষা পর্ষদের নিয়মে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।আমাদের এই সংস্থার রুপকার ও সভাপতি ছিলেন পঃবঃ মাদ্রাসা শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি, বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক, লেখক মরহুম ড. সোহারাব হোসেন। তাঁর নেতৃত্ব এবং পরামর্শে সিরাতের সদস্যরা সমাজের বহুমূখী কাজ করতেন বর্তমানেও করে চলেছেন। তারমধ্যে সিরাত ট্যালেন্ট সার্চ এক্সাম একটি গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচী। এই পরীক্ষা, ২০১৬ সাল থেকে মধ্যশিক্ষা প্রাথমিক শিক্ষা ও মাদ্রাসা শিক্ষা পর্ষদের সিলেবাস অনুসারে অত্যন্ত পরিচ্ছন্নভাবে পরীক্ষা ব্যবস্থা শুরু হয় মাল্টিপল চয়েসের প্রশ্নের আকারে। রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় সরকারী ও বেসরকারী মাদ্রাসা, স্কুল, মিশন, প্রাইমারি স্কুল ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানের মেধাবী শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে আসছে। পরীক্ষার ব্যবস্থার চেয়ারম্যান ও রাউতাড়া মহেন্দ্রনাথ মেমোরিয়াল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক জিয়াউল হক বলেন, এই পরীক্ষা নিয়মতান্ত্রিক মেনে পরীক্ষা নেওয়া হয়। এর উপকারিতা আছে। যাতে করে শিক্ষার্থীরা নিজেদের স্কুলের বাইরে গিয়ে একাধিক স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের সাথে পরীক্ষা দিতে পারলে নিজের ভয়, ভীতি, সংকোচ, জড়তা কাটিয়ে উঠতে পারবে।সিরাত ট্যালেন্ট সার্চের কো-অর্ডিনেটর শিক্ষক মাহমুদুল হক তরফদার বলেন, আমরা পূর্বের ধারা অব্যাহত রেখে এ বছরেও আজ ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ আমরা বিভিন্ন জেলায় ২১ টি পরীক্ষা কেন্দ্রের মাধ্যমে সহস্রাধিক পরীক্ষার্থীদের নিয়ে রাজ্য পর্যায়ে সিরাত ট্যালেন্ট সার্চ এক্সাম অনুষ্ঠিত হয়।

সিরাতের রাজ্য সভাপতি হাজি আকবর আলি সাহেব বলেন, এই পরীক্ষার জন্য বিভিন্ন স্কুল, মাদ্রাসা ও মিশন আমাদের সাথে যথেষ্ট সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। আমরা তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।এই পরীক্ষায় চ্যাম্পিয়ান হলে পাঁচ হাজার টাকা, প্রতিটি ক্লাসে প্রথম স্থান অধিকার করলে দেড় হাজার টাকা, দ্বিতীয় হলে এক হাজার টাকা, তৃতীয় হলে পাঁচশো টাকা এর সাথে মেডেল মেমেন্ট, শংসাপত্র, বই পেন ইত্যাদি প্রদান করা হবে বারাসাত রবীন্দ্র ভবনে।
সিরাতের সম্পাদক ড. কৌশিক হালদার বলেন, পুরষ্কার বিতরণ ও স্কলারশিপ প্রদান অনুষ্ঠানে রাজ্যের মন্ত্রী, সাংসদ, অধ্যাপক, শিক্ষাবিদ,প্রধান শিক্ষক, সহকারী শিক্ষক ও শিক্ষানুরাগীরা উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের সাফল্যের স্বীকৃতি দেবেন।