মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়: চিকিৎসক, নার্সদের জন্য বিনা পয়সায় জমি দেওয়ার ভাবনা রাজ্যের

নতুন গতি নিউজ ডেস্ক: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই ঘোষণা করেছিলেন, প্রতি মাসে দু’দিন করে এসএসকেএমে স্বাস্থ্য পরিকাঠামো নিয়ে বৈঠক করবেন। সেই ঘোষণা অনুযায়ী আজ বিকেলে এসএসকেএমে যান মুখ্যমন্ত্রী।

বৈঠকের পর বেরিয়ে এসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘১৬ সেপ্টেম্বর বিকেলে কলকাতার ৫ মেডিক্যাল সুপারদের সঙ্গে বৈঠক। চিকিৎসক, নার্সদের জন্য বিনা পয়সায় জমি দেওয়ার ভাবনা রাজ্যের। ১০ একর জমিতে কোয়ার্টার তৈরি করতে পারবেন চিকিৎসক-নার্সরা। প্র্যাকটিসনার নার্স হিসেবে অভিজ্ঞ নার্সদের পদোন্নতি। রাজ্যে চিকিৎসকের অভাব আছে। কোয়াক ডাক্তাররা প্রাইমারি হেল্থ সেন্টারে কাজ করবেন।’

মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘প্রথম দিনের বৈঠক সফল হয়েছে। করোনার তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলায় ব্যবস্থা করেছে রাজ্য। ১০ হাজার বেড তৈরি রাখা হয়েছে। মা ও শিশুদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো নিয়ে বৃহস্পতিবার এসএসকেএম হাসপাতালে বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী। বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী জানান, চিকিৎসকদের ঘাটতি মেটাতে একাধিক পদক্ষেপ করা হয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম প্র্যাকটিসনার সিস্টার পদ। এ প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী জানান, ‘যাঁরা ভাল কাজ করবেন, আমরা ঠিক করেছি, সেই সমস্ত নার্সদের আমরা আরও এক ধাপ পদোন্নতি করব। ভাল কাজ করলে এই পদোন্নতি হয়ে নার্সরা হবেন প্র্যাকটিসনার সিস্টার। স্বাস্থ্য দফতর গাইডলাইন করে দেবে।’

এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘হিডকোকে বলেছি ১০ একর জমি খুঁজে বের করে দিতে। জমি বিনা পয়সায় দেওয়া হবে ডাক্তার ও নার্সদের। ওরা চাইলে হাউজিং তৈরি করে নেবে।’

গ্রামীণ চিকিৎসায় কোয়াকদের আরও কাজে লাগানো হবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘কোয়াকদের দিয়ে গ্রামে গ্রামে কাজ করানো হবে। প্রাইমারি হেলথ নিয়ে ওরা কাজ করবে।’

গত সপ্তাহে এসএসকেএমে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানান, স্বাস্থ্য পরিকাঠামো নিয়ে তিনি মাসে ২ দিন বৈঠক করবেন। সেইমতো বৃহস্পতিবার হয় প্রথম বৈঠক। ১৬ সেপ্টেম্বর এসএসকেএমে ৫ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষের সঙ্গে বৈঠক করবেন মুখ্যমন্ত্রী।