টাকা পয়সা কেড়ে নিয়ে ছুরি মেরে এক যুবককে ট্রেন থেকে ফেলে দিল দুষ্কৃতীরা!

নিজস্ব সংবাদদাতা : কি কাণ্ড ! হাড় হিম করে ঘটনা! টাকা পয়সা কেড়ে নিয়ে ছুরি মেরে এক যুবককে ট্রেন থেকে ফেলে দিল দুষ্কৃতীরা! পূর্ব বর্ধমান জেলার ব্যান্ডেল কাটোয়া শাখার ট্রেনে নাদনঘাটের কাছে এই ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার কথা শুনে উদ্বিগ্ন আতঙ্কিত নিত্যযাত্রীরা। তাঁরা যাত্রী নিরাপত্তার বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। বুধবার সকালে নাদন ঘাট থানার অন্তর্গত কাঞ্চন তলা এলাকায় ক্ষতবিক্ষত আশঙ্কাজনক অবস্থায় এক যুবককে উদ্ধার করা হয়। তাঁকে গুরুতর আহত অবস্থায় নাদন ঘাট থানার পুলিশ কালনা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আহত ওই যুবকের নাম মফিল কুমার। তার বাড়ি বিহারের বৈশালী জেলার মহুয়া গ্রামে। এ রাজ্যে কাজের সন্ধানে এসেছিল। তাকেই রেল লাইনের ধার থেকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

আহত মফিলের দাবি, গতকাল সে রাতের ট্রেনে চেপেছিল। তার কাছে কিছু টাকা পয়সাও ছিল। তার চোখে ঘুম চলে আসে। হঠাৎই একজন তাকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে। এরপর তার কাছ থেকে টাকা পয়সা কেড়ে নেওয়া হয়। ধাক্কা দিয়ে তাকে চলন্ত ট্রেন থেকে বাইরে ফেলে দেওয়া হয় বলে দাবি করেছে ওই যুবক। যদিও সে কোন ট্রেনে উঠেছিল,কোথায় যাচ্ছিল সেসব ব্যাপারে সে কিছুই বলতে পারেনি। এই ঘটনায় যথেষ্টই চাঞ্চল্যে সৃষ্টি হয়েছে।নিত্যযাত্রীরা বলছেন, রাতের ট্রেনে মোবাইল ছিনতাই, পকেটমারি নিত্যদিনের ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। যাত্রী নিরাপত্তার কোনও বালাই দেখা যাচ্ছে না। রাতের ফাঁকা ট্রেনগুলিতে রেল পুলিশ থাকা দরকার। এ ব্যাপারে রেল কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানানো হবে বলে জানিয়েছে নিত্য যাত্রীদের সংগঠনগুলি।হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই যুবকের মুখের বাঁ পাশে চোখের ওপর দিকে আঘাত গুরুতর। ইন্টারনাল হেমারেজ আছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। তবে চিকিৎসায় ওই যুবক সাড়া দিয়েছেন। জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এলাকার বাসিন্দারা ক্ষত বিক্ষত অচৈতন্য অবস্থায় ওই যুবককে দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেয়। এরপর তাকে উদ্ধার করে কালনা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।