তৃণমূল নেতার রহস্যমৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল অন্ডালের পাণ্ডবেশ্বর এলাকায়

নিজস্ব সংবাদদাতা : তৃণমূল নেতার রহস্যমৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল অন্ডালের পাণ্ডবেশ্বর এলাকায়। রবিবার সকালে পাণ্ডবেশ্বর পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ নদিয়া ধীবরের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় তাঁর ঘর থেকে। পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। শুরু হয়েছে তদন্তও।

নদিয়ার বাড়ি অন্ডাল থানার পাণ্ডবেশ্বর বিধানসভার ছোড়া গ্রামে। রবিবার সকালে নিজের ঘর থেকে উদ্ধার হয় নদিয়ার ঝুলন্ত দেহ। নদিয়া পেশায় আইনজীবী ছিলেন। তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এই ঘটনা ঘিরে রহস্য ঘনিয়েছে। এমন ঘটনায় হতভম্ব নদিয়ার পরিবারের সদস্য এবং প্রতিবেশীরা। কিশোর চক্রবর্তী নামে নদিয়ার এক প্রতিবেশীর কথায়, ‘‘প্রতি দিনের মতো রবিবার সকালেও নদিয়া তাঁর ওকালতির কাজের জন্য দফতর খুলে বাড়ি ফিরেছিলেন। তার পরই শোনা যায় তাঁকে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছে। আমরা তো এটা শুনে অবাক হয়ে গিয়েছি।’’ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় অন্ডাল থানার পুলিশ। মৃতদেহ উদ্ধার করে পাঠানো হয় ময়নাতদন্তের জন্য। কী কারণে নদিয়ার মৃত্যু ঘটল তা ময়নাতদন্তের পর সামনে আসবে বলে মনে করছে পুলিশ।ঘটনাস্থলে যান পাণ্ডবেশ্বরের বিধায়ক নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী। তিনি বলেন, ‘‘এটা খুবই দুঃখজনক ঘটনা। তৃণমূলের এক জন দক্ষ নেতা চলে গেলেন। নদিয়া এক বার জেলা সভাধিপতি হবেন বলে ঠিক হয়েছিল। উনি ভাল নেতা ছিলেন। তৃণমূলের দক্ষ সৈনিক ছিলেন তিনি। তবে কী কারণে এই ঘটনা ঘটেছে তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। পাশাপাশি দলগত ভাবেও বিষয়টি দেখা হচ্ছে।’’