আত্মহত্যার হাত থেকে বাঁচিয়ে নিয়ে এলো অভিযান

সাকিব হাসান, টালিগঞ্জপ্রশান্ত: বোস নামের এই ব্যক্তি, ব্যানার্জি পাড়া লেন করুনাময়ী টালিগঞ্জের বাসিন্দা। হঠাৎ করে রাতদুপুরে ফেসবুক প্রোফাইল থেকে লাইভে এসে নিজের সমস্যার কথা জানিয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেন‌‌। বহু মানুষ সেই ফেসবুক লাইভটি দেখেন। খবর পেয়ে অভিযান ওয়েলফেয়ার এন্ড চ্যারিটেবল ট্রাস্ট এর প্রতিষ্ঠাতা গৌরব রায় তৎক্ষণাৎ ওই ব্যক্তির ফোন নম্বর এর সন্ধান নিয়ে ওনার সাথে কথা বলেন এবং ওনাকে আশ্বাস দেন অভিযান ওনার পাশে আছে।

অভিযান এর প্রধান মুখপাত্র সুমন সাধুখাঁ এবং কার্যকারী সভাপতি জন্টি বন্দোপাধ্যায় অতি দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে উপস্থিত হন এবং প্রশান্ত বোসের কাছ থেকে তার আত্মহত্যার চেষ্টা করার কারণ বিস্তারিত ভাবে জানতে চান। প্রশান্ত বোস জানান তার স্ত্রী জোর করে তার সমস্ত সম্পত্তি কেড়ে নিয়েছেন তারপর ওনার ওপরে মানষিক এবং শারীরিক অত্যাচার চালিয়ে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। তাই তিনি বাধ্য হয়ে আত্মহননের পথ বেছে নিয়েছিলেন। অভিযান এর পক্ষ থেকে প্রশান্ত বোসের মনোবল বাড়ানোর চেষ্টা চলতে থাকে।

ইতিমধ্যে প্রশান্ত বোসের আত্মহত্যার চেষ্টা করার ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়ে। নিকটবর্তী হরিদেবপুর থানা থেকে তাকে ডেকে পাঠানো হয়। প্রশান্ত বোসের সাথে অভিযান এর প্রতিনিধিরাও থানায় যান। থানা থেকে প্রশান্ত বোসকে দিয়ে তার লাইভ ভিডিওটি ডিলিট করানো হয়।

থানার কর্তব্যরত পুলিশ আধিকারিক সোমনাথ কর মহাশয়ের সাথে অভিযান এর প্রতিনিধিদের আলোচনা হয় এ বিষয়ে। তারপর প্রশান্ত বোসের স্ত্রীর নামে ডায়েরী করা হয় থানায় এবং প্রশান্ত বোসকে আশ্বাস দেওয়া হয় সব রকমের পরিস্থিতিতে অভিযান তার পাশে আছে। প্রশান্ত ঘোষকে তার বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হয়।

যদিওবা এখনো পর্যন্ত প্রশান্ত বোস তার ভয় সম্পূর্ণ ভাবে কাটিয়ে উঠতে পারেননি। তিনি জানিয়েছেন আত্মহত্যা করার হাত থেকে বেঁচে ফিরলেও তার প্রাণ সংশয় রয়েই গেছে। তার স্ত্রী গুন্ডাদের সাথে নিয়ে এসে যখন তখন তার ওপর চড়াও হতে পারেন বলে তিনি মনে করছেন। প্রশান্ত ঘোষ আরো জানিয়েছেন যদি তার অস্বাভাবিক মৃত্যু হয় তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে যেনো সঠিক ভাবে তদন্ত করে আসল অপরাধীকে কঠোরতম শাস্তি দেওয়া হয়।