ক্রেতা সেজে বাইক চুরির পাণ্ডাকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ,দুবরাজপুরে

সেখ রিয়াজুদ্দিন বীরভূম:- অভিনব কায়দায় মোটরবাইক চুরি চক্রের পান্ডাকে হাতেনাতে ধরে ফেলে বীরভূমের দুবরাজপুর থানার পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ধৃতের নাম মনিমোহন দাস, বাড়ি দুবরাজপুর পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের লালবাজারে।শহর এলাকা থেকে বেশ কিছুদিন যাবৎ বাইক চুরির ঘটনা ঘটছিল। দুবরাজপুর থানার পুলিশ বাইক চুরি চক্রের কিনারা করতে গোপনে তদন্ত শুরু করে বিভিন্ন পদ্ধতি অবলম্বন করে।সেরকম বৃহস্পতিবার মোটরবাইক বিক্রির খবর পেয়ে পুলিশ ক্রেতা সেজে সেখানে গিয়ে বাইক সহ চুরির পাণ্ডা মনিমোহন দাসকে হাতেনাতে ধরে ফেলে।

উল্লেখ্য, বাইক বিক্রির খবরে দুবরাজপুর থানার পুলিশ ক্রেতা সেজে বিক্রেতা মনমোহন দাসের সাথে মোবাইল ফোন মারফত গাড়ি বিক্রি সংক্রান্ত কথোপকথন হয়। গাড়িটির বিক্রিত দাম বলে ১২ হাজার টাকা,পুলিশের পক্ষ থেকে ৯ হাজার টাকা বলা হয়। শেষ পর্যন্ত ৮ হাজার টাকায় রফা হয় এবং টাকা আনার জন্য বলা হয়। এরপর বাইক হস্তান্তরের জন্য ডাকা হয় স্থানীয় থানা এলাকার তরুলিয়া মোড়ে। সেখানেই দুবরাজপুর থানার পুলিশ এসে মোটর বাইক সহ তাঁকে গ্ৰেপ্তার করে। এবং জিজ্ঞেসাবাদ করে তাঁর কাছ থেকে মোট ৮ টি মোটর বাইক উদ্ধার হয়।ইতিপূর্বে ও ধৃতের কাছে থেকে বহু মোটর বাইক উদ্ধার করেছে দুবরাজপুর থানার পুলিশ।ধৃতকে শুক্রবার দুবরাজপুর আদালতে তোলা হয় এবং তদন্তের স্বার্থে আদালতের কাছে ৫ দিনের পুলিশি হেফাজতের আবেদন করেন। বিচারক ধৃতের জামিন খারিজ করে তদন্তের স্বার্থে ৩ দিনের পুলিশী হেফাজতের নির্দেশ দেন।