ফের ত্রিপুরায় আক্রান্ত তৃণমূলের ছাত্র নেতৃত্ব

নতুন গতি ওয়েব ডেস্ক: ফের ত্রিপুরায় আক্রান্ত তৃণমূলের ছাত্র নেতৃত্ব। সোনামুড়া এলাকায় ত্রিপুরার দায়িত্বপ্রাপ্ত ছাত্রনেতা সুদীপ রাহার গাড়িতে ইট ছোঁড়া হয়। তাঁর মাথায় ইটের আঘাত লেগে মাথা ফেটে গিয়েছে। পাশাপাশি সুদীপের সঙ্গে থাকায় আক্রান্ত হয়েছেন দুই ছাত্রনেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য ও জয়া দত্তও। জয়ার কানে চোট লাগায় তিনি রক্তাক্ত হয়েছেন। অভিযোগের তির  সেখানকার শাসকদলের নেতা, কর্মীদের দিকেই।

বিজেপি শাসিত ত্রিপুরায় ‘পুলিশি অত্যাচার’-এর প্রতিবাদ করতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন সুদীপ রাহা। তাঁকে সামলান দলের অন্যান্য নেতা, কর্মীরা।কিছুক্ষণের মধ্যে পথ অবরোধ করে প্রতিবাদ শুরু করেন তৃণমূল নেতৃত্ব। ফেসবুক লাইভে গোটা বিষয়টি জানিয়েছেন সুদীপ রাহা। ঘটনায় ব্যাপক ক্ষুব্ধ রাজ্যের তৃণমূল নেতৃত্ব। ত্রিপুরা তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি আশিসলাল সিং জানিয়েছেন, পুলিশের লাঠির ঘায়ে মাথা ফেটেছে বাংলার সুদীপ রাহা নামে এক ছাত্রনেতার।

জানা গিয়েছে, শনিবার ত্রিপুরার আম্বাসা-সহ কয়েকটি জায়গায় তৃণমূলের প্রতিবাদ কর্মসূচি ছিল। সেখানে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন জয়া, দেবাংশু, সুদীপরা। কিন্তে ওই এলাকায় কারফিউ জারি থাকায় পুলিশ তাঁদের পথ আটকায়। পালটা পুলিশি বাধা পেরিয়ে জোর করে এগোতে যান তৃণমূলের ছাত্রনেতারা। তারপরই পুলিশ তাঁদের উপর অত্যাচার শুরু করে বলে অভিযোগ। সুদীপ রাহার গাড়িতে বড় বড় ইটের টুকরো দেখা যায়। সেই ইটের আঘাতেই সুদীপের মাথা ফাটে বলে অভিযোগ। ঘটনা জানাজানি হতেই এ রাজ্যের তৃণমূল নেতৃত্ব গর্জে উঠেছে। তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় টুইট করে এর তীব্র নিন্দা করেন। চাঁচাছোলা ভাষায় তাঁর অভিযোগ, ত্রিপুরায় বিজেপির বিপ্লব দেব সরকারের নেতৃত্বে গুন্ডরাজ চলছে।

তৃণমূলের রাজ্য নেতা কুণাল ঘোষ জানিয়েছেন, ”ত্রিপুরায় গণতন্ত্র ধ্বংস। তরুণ তুর্কীদের উপর কুৎসিত হামলা চলছে। বিজেপির বিদায় শুধু সময়ের অপেক্ষা। দলের নির্দেশে ব্রাত্য আর আমি রবিবার সকালে ত্রিপুরা যাচ্ছি।”

শনিবার সকালেই রাজ্যের প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক সমীর চক্রবর্তী ত্রিপুরা পৌঁছেছেন। তাঁর হাত থেকে দলীয় পতাকা নিয়ে কয়েকজনের তৃণমূলে যোগ দেওয়ার কর্মসূচি ছিল। সেই কর্মসূচির আগেই পুলিশ আয়োজকদের গ্রেপ্তার করে বলে অভিযোগ। আর সেই কর্মসূচিতে যোগ দিতে গিয়ে ফের আক্রান্ত হয়েছেন তৃণমূলের ছাত্রনেতারা। গত সপ্তাহে অভিষেক ত্রিপুরা সফরের সময় বিমানবন্দরের কাছে দলীয় পতাকা লাগাতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছিলেন দেবাংশু, সুদীপ রাহারা। সেবারও পতাকা লাগাতে বাধা দেওয়া হয়েছে শাসকদলের তরফে।