মনোনয়ন পত্র জমাকে কেন্দ্র করে ব্যপক উৎসাহ তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে

শিলিগুড়ি: সোমবার একসাথে শিলিগুড়িতে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন তৃনমুল কংগ্রেসের প্রার্থীরা। এদিন সকালে শিলিগুড়ি মহকুমা শাসকের দফতরে গিয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দেন ৪৭ টি ওয়ার্ডের তৃণমূল কংগ্রেসের ৪৭ জন প্রার্থী। এই মনোনয়ন পত্র জমাকে কেন্দ্র করে ব্যপক উৎসাহ লক্ষ্য করা গেছে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে। মহকুমা শাসকের দফতরের সামনে দলীয় কর্মী সমর্থকদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত।
এদিন তৃণমুল কংগ্রেসের প্রার্থী হতে না পেরে নির্দল প্রার্থী হয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের পরপর দুবারের তৃণমূলের কাউন্সিলার নিখিল সাহানী ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল নেতা বিকাশ সরকার।

এদিন তারা বলেন, দলের প্রতি তাদের যথেষ্ট আস্থা রয়েছে। তারা আগেও যেমন তৃণমূলের কর্মী ছিলেন, বর্তমানেও আসছেন আর দল যদি রাখে তাহলে ভবিষ্যতেও তৃণমূলেই থাকবেন তারা। তবে এলাকাবাসীর আবেগকে গুরুত্ব ও সম্মান জানিয়ে তারা নির্দল প্রার্থী হয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

এদিন মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার পর গৌতম দেব বলেন, শিলিগুড়ি পরিচিত মাঠ। ৫ বারের কাউন্সিলার, মন্ত্রী বিধায়ক। এবার তিনি ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে লড়াই করছেন তৃণমূলের প্রতীকে। সেখানে গিয়ে ওয়ার্ডের নাগরিকদের কাছে ব্যপক সারা পাচ্ছেন। ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের মত ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডকেও শিলিগুড়ির মডেল ওয়ার্ড করার প্রতিশ্রুতি দেন গৌতম দেব। বিকাশ সরকার ও নিখিল সাহানির নির্দল হয়ে ভোটে দাঁড়ানো প্রসঙ্গে গৌতম দেব বলেন, তিনি এই বিক্ষুব্ধ দুই নেতার সাথে ব্যক্তিগতভাবে কথা বলবেন। তিনি আশাবাদী বিবাদ ভূলে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করে তৃণমূলের হয়েই লড়াইয়ে সামিল হবেন বিকাশ নিখিল।