মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আদলে মা দুর্গা প্রতিমা দেখে তীব্র নিন্দা বিজেপির

নতুন গতি নিউজ ডেস্ক: ‘মা’-এর মতো গোটা রাজ্যকে আগলে রেখেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই মুখ্যমন্ত্রীর আদলেই এবার মা দুর্গা গড়ে তুললেন প্রতিমা শিল্পী। পুজোর থিম ‘তুমিই ভরসা’। এবারের পুজোয় অভিনব এই থিম দেখা যাবে বাগুইআটির নজরুল পার্ক উন্নয়ন সমিতিতে। খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো অবিকল চেহারার প্রতিমা তৈরি করেছেন শিল্পী। মুখ্যমন্ত্রীর আসল উচ্চতা ও ওজন অনুযায়ী তৈরি হচ্ছে ফাইবারের দুর্গা প্রতিমা।

প্রতিমার অবয়ব প্রকাশ্যে আসতেই মমতার মুখের আদলে তৈরি দুর্গা প্রতিমার তীব্র নিন্দা করেছেন বিজেপি আইটি সেল প্রধান অমিত মালব্য। গোটা ঘটনায় রেগে আগুন গেরুয়া শিবির। ভোট পরবর্তী হিংসার কথা মনে করিয়ে দিয়ে অমিত মালব্য কড়া ভাষায় টুই করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘এটি দেবী দুর্গার অপমান। এটি বন্ধ করতে হবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তিনি বাংলার হিন্দুদের অনুভূতিতে আঘাত করছেন।’

VIP রোডের বাগুইআটি সংলগ্ন একটি ছোট্ট পুজোর ক্লাব নজরুল পার্ক উন্নয়ন সমিতি। এবারের পুজোয় প্রথম থিম পুজো করছেন তারা। আর প্রথম থিমেই চমক। উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, তৃতীয়বার সরকার গঠন করে দিদি প্রতিশ্রুতি রেখেছেন। দিদির অনুপ্রেরণায় তাই সাধারন নাগরিক হিসাবে মাতৃরূপী মমতাকেই তুলে ধরলাম থিমে। তাঁর মমতাময়ী মা রূপটাই তুলে ধরা হচ্ছে মূর্তিতে।

কুমোরটুলির শিল্পী মিন্টু পালের হাতেই তৈরি হয়েছে এই ফাইবারের প্রতিমা। মুখ্যমন্ত্রীর উচ্চতা ও দেহের ওজনের কথা মাথায় রেখেই তৈরি করা হচ্ছে মুর্তি। মূর্তির পরনে থাকবেসাদা শাড়ি ও পায়ে হাওয়াই চপ্পল। দেবী দুর্গার মতোই মূর্তির দশটি হাতও থাকবে। সেই দশ হাতে অস্ত্রের বদলে থাকবে মমতার সরকারের ১০টি জনপ্রিয় প্রকল্পের নাম। প্রতিমার চালচিত্র হিসেবে ব্যবহার করা হবে মুখ্যমন্ত্রীরই পরিকল্পনায় তৈরি ‘বিশ্ব বাংলা’ লোগো। মণ্ডপেও থাকছে অভিনবত্ব। মণ্ডপের থিমে ফুটিয়ে তোলা হবে স্বাস্থ্য সাথী থেকে শুরু করে খাদ্য সাথী, কিংবা লক্ষ্মীর ভাণ্ডার। থিমের আঙিনায় রাজ্যের এই সামাজিক প্রকল্পকে জায়গা দিচ্ছেন উদ্যোক্তারা। তাঁরা জানাচ্ছেন, বাজেট কম, জায়গা সীমাবদ্ধ। এর মধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীর এই সামাজিক প্রকল্পগুলিকে যতটা সম্ভব তুলে ধরার চেষ্টা করছি। উদ্যোক্তাদের কথায়, দিদিকে দেখতে চাইছে দিল্লি। লক্ষ্য ২০২৪। তার আগে আমাদের মণ্ডপেই মমতাময়ী দুর্গাপ্রতিমা দেখতে পাবেন দর্শনার্থীরা। কোণায় কোণায় থাকবে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্পের কথা।

রাজনৈতিক বিতর্কের মধ্যেই পুজো কমিটির উদ্যোক্তারা জানান, এমন প্রতিমা তৈরি করার অর্থ কোনও রাজনৈতিক বার্তা দেওয়া নয়। বিরোধী কোনও রাজনৈতিক দল বা নেতাদের মানসিকভাবে আঘাত করাও লক্ষ্য নয়। শুধুমাত্র মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যের জন্য যে বিভিন্ন উন্নয়নের কাজ করেছেন, সে কথা মাথায় রেখেই তাঁদের এই উদ্যোগ বলে জানাচ্ছে নজরুল পার্ক উন্নয়ন সমিতি।