ওভালে ইতিহাস, অন্তিম দিনে জয় ভারতের

নতুন গতি নিউজ ডেস্ক: ওভালে ইতিহাস৷ বিরাট কোহলি বাহিনী নতুন সাফল্যের নজির গড়ল৷ এই মাঠে ৫০ বছরে যা করতে পারেনি ভারত তাই করল ভারতীয় ক্রিকেট দল৷ ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চতুর্থ টেস্টে ১৫৭ রানে জিতল ভারত৷ এর ফলে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজে ২-১ এগিয়ে গেল টিম ইন্ডিয়া৷ পাশাপাশি কোনও ভাবেই সিরিজ হারবে এটাও সিলমোহর পড়ে গেল৷

হাফসেঞ্চুরি করার পরের বলেই শার্দুলের বলে খোঁচা দিয়ে ফিরে গেলেন রোরি বার্নস। ইংলিশ ওপেনারকে বাড়ি ফিরিয়ে প্রথম ধাক্কাটা দিলেন শার্দুল৷ উইকেটের পিছনে পন্থ ধরতে ভুল করেননি। এরপর হাসিব হামিদকে প্রায় আউট করে দিয়েছিলেন রবীন্দ্র জাদেজা। কিন্তু সেই ভুলের খেসারত দিতে হয় দলকে৷ ওভালেও অর্ধশতরান এল তাঁর ব্যাট থেকে। তবে দুই ওপেনারের বুক চিতিয়ে লড়াইয়ের দাম দিতে পারল না টপ অর্ডার বা মিডল অর্ডার৷

রান আউট হয়ে ফিরলেন মালান। দ্বিতীয় সাফল্য ভারতের। ৫ রানের মাথায় হামিদের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে হল এই রান আউট। অধিনায়ককে আউট করার ব্যাপারে নিশ্চয়ই কোনও প্ল্যান করে রেখেছে।

লাঞ্চে ইংল্যান্ডের স্কোর ছিল ২ উইকেটে ১৩২৷ ম্যাচ যখন ড্র করে নিতে পারে ইংলিশ বাহিনী এরকম যখন মনে হচ্ছে তখন ভারতীয় বোলারদের পারফরম্যান্স একেবারে তুখোড়৷ জসপ্রীত বুমরাহ ও রবীন্দ্র জাদেজা৷ এঁরা দুজনে লাঞ্চ বিরতির আগে ও পরে তুলে নেন ৷ জাদেজা নেন হাসিব হামিদের উইকেট ও মইন আলির উইকেট৷ ব্যাট হাতে ম্যাজিক দেখাতে পারেন মইন আলি তা কারোর অজানা নয় তাই শূন্য রানে প্যাভিলিয়নে ফিরিয়ে দেওয়া নিঃসন্দেহে স্বস্তিদায়ক৷ এরপর বুমরাহ নেন পোপে ও জনি বেয়ারিস্তোর গুরুত্বপূর্ণ দুটি উইকেট৷

তবে ভারতের জয় আর ধোঁয়াশা বা স্বপ্ন বোনা নয় এটা কার্যত পাকাপাকি করে দেন শার্দুল ঠাকুর৷ ইংলিশ অধিনায়ক ক্রিজে থাকলে কোনও অসম্ভবই সম্ভব তা জানে ক্রিকেটপ্রেমীরা৷ তাই তাঁকে আউট করে দিতে মাঠে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস৷

এরপর তো আয়ারাম গয়ারাম৷ মধ্যে টি সেশনে কিছুটা দেরি হয় ভারতের জয়৷ উমেশ যাদব নেন ৩ টি উইকেট৷ বাকিরা ২ টি করে উইকেট নেন৷ শুধুমাত্র মহম্মদ সিরাজ উইকেট পাননি৷