কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে শ্রীরামপুর স্টেশনকে মাহেশ মন্দিরের আদলে তৈরির আবেদন জানালেন জগন্নাথ মন্দিরের সেবাইত!

নিজস্ব সংবাদদাতা;কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে শ্রীরামপুর স্টেশনকে মাহেশ মন্দিরের আদলে তৈরির আবেদন জানালেন জগন্নাথ মন্দিরের সেবাইত। সোমবার শ্রীরামপুর মাহেশের জগন্নাথ মন্দিরে পুজো দিতে আসেন কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। পুজোর পরে গোটা মন্দির পরিদর্শনও করে দেখেন তিনি। মাহেশ মন্দিরের পক্ষ থেকে জগন্নাথ দেবের ছবি উপহার স্বরূপ তুলে দেওয়া হয় মন্ত্রীর হাতে। তখনই তাঁর কাছে মাহেশ মন্দিরের আদলে শ্রীরামপুর স্টেশন তৈরি করার আবেদন জানান মন্দিরের সম্পাদক পিয়াল অধিকারী। এই বিষয়ে মন্ত্রী থেকে আশ্বাসও পেয়েছেন তিনি।

শ্রীরামপুর স্টেশনকে মাহেশের মন্দিরের অনুকরণে করার আবেদন জানানো হয়েছিল ২০১১ সালে। এই বিষয়ে মন্দিরের তরফ থেকে শ্রীরামপুরের সংসদ কল্যাণ ব্যানার্জীর কাছে একটি লিখিত আবেদন জমা করা হয়েছিল। প্রথমে সেই আবেদনে সাড়া মিললেও পরবর্তীতে সেই কাজ বন্ধ হয়ে যায় রেলের বাজেট পেশ হওয়ার পরে। সেই কাজকে আবারো অগ্রগতি দেওয়ার জন্য এবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর দ্বারস্থ হলেন মন্দির কর্তৃপক্ষ।
মন্দিরের সেবাইত পিয়াল অধিকারীর অভিযোগ, দক্ষিণেশ্বর স্টেশন দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের আদলে তৈরি। বেলুড় মঠের স্টেশনটা বেলুড় মঠের আদলে তৈরি। শ্রীরামপুর স্টেশন কেন বাদ পড়বে! তার দাবি যাতে শ্রীরামপুর স্টেশন মাহেশ জগন্নাথ মন্দিরের আদলে তৈরি করা হয়। এটা শুধু মাহেশ বা শ্রীরামপুর বাসির নয়, সারা পশ্চিমবঙ্গবাসীর গর্ব হবে। তাই যাতে শ্রীরামপুর স্টেশন মাহেশ জগন্নাথ মন্দিরের আদলে তৈরি হয় তার জন্য মন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছেন তিনি।

মাহেশ মন্দিরের সম্পাদক এই বিষয়ে জানান, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে পুরো বিষয়টি জানানো হয়েছে। মন্ত্রীর তরফ থেকে আশ্বাস ও মিলেছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানিয়েছেন এই বিষয়ে তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধানের সঙ্গে আলোচনা করবেন। যাতে শীঘ্রই এই কাজ শুরু হয়। মন্ত্রী আশ্বাসে আশায় বুক বেঁধেছেন মন্দির কর্তৃপক্ষ। দেখার কবে থেকে শুরু হয় নতুন করে রেলস্টেশন নির্মাণের কাজ।