ইলিয়াস মল্লিক, সলপ, হাওড়া : বারো মাসে তেরো পার্বণ। আর সেই তেরোর সেরা বাঙালির দুর্গাপূজা।দেবী আসছে অসুরের অপশক্তি কে দূর করতে। দেবী দুর্গাকে স্বাগত জানানোর প্রস্তুতি এখন শেষের পথে। কোলকাতা তথা বাংলার মানুষ শারদীয়  উৎসবকে রঙীন করতে ব্যস্ত।পুরো দমে চলছে পুজোর কেনাকাটা, নানারঙে সেজে উঠেছে মহানগরী কোলকাতার অলিগলি। আগমনী আবহাওয় মানুষ মেতেছে আনন্দে। এই আনন্দের মাঝে সমাজের কিছু বিষাদ মলিন মুখ ভেসে উঠল হাওড়া সলপের তরুন দল, জোনাকীর চোখে। হ্যাঁ বাংলা এখন পুজোর প্রস্তুতিতে কিন্তু মানুষের ভিড়ে হারিয়ে যাওয়া কিছু ক্ষুধার্ত মাসুম তারা স্বপ্ন দেখে দুবেলা দুমুঠো পেট ভরে খাবার। তাদের কাছে পুজোয় নতুন জামাকাপড় পরে ঠাকুর দেখা কোন ঐশ্বরিক মিরাকেল ছাড়া‌ কিছুই নয়। তাই এবছর তাদের সাথে খুশি ভাগ করে নিতে পৌঁছে গেল হাওড়া সলপের জোনাকী নামের এক দল তরুন। তারা তাদের পুজোর কেনাকাটার একটা অংশ ভাগ করে নিলো ঐ বঞ্চিত পথ শিশুদের সাথে। তারা নানা রকমের জামা কাপড় ও প্রয়োজনীয় খাদ্যপণ্য নির্মল হাতে বিলিয়ে দিল ঐ শিশুদের কাছে। জোনাকী দলের সদস্য আতিশ, জয়ন্ত, রণজয়, শুভ, তণয়া, রিতিশা, গোবিন্দ,সুমন, শংকর, সুব্রত, অভিজিৎ এরা সকলেই গতকাল খুশির ডালি হাতে সাত সকালে পৌঁছে গিয়েছিল আমতার দুস্থ মানুষগুলোর কাছে। তাদের কথায় এমন একটা কাজ করে তারা খুব আন্তরিক তৃপ্তি উপভোগ করেছে। আগামীতেও তারা জোনাকী নাম নিয়ে সমাজের অবহেলিত মানুষের পাশে দাঁড়াতে চায়। আশা করা যায় তাদের এই সুন্দর উদ্বেগ তরুন সমাজকে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে উদ্বুদ্ধ করবে।

জোনাকী-র সদস্য আতিশ চিনে এক ছোট্ট শিশুর হাতে তুলে দিচ্ছে নতুন কাপড়।